মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০৩:৩৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
শ্যামনগর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সবুজের বিরুদ্ধে পদ বানিজ্যের অভিযোগ সাতক্ষীরায় মাদক বিক্রিতে বাধা দেওয়ায় কিশোর কে কুপিয়ে জখম খুলনায় দলীয় শৃংখলা ভঙ্গের অপরাধে দল থেকে সাময়িক বহিস্কার এফ এম ওহিদুজ্জামান খুলনার দিঘলিয়ায় প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের কোপে যুবক নিহত গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে বিএনপি নেতা গ্রেফতার সাতক্ষীরা করোনা হাসপাতালে আবারো চিকিৎসা সরঞ্জাম দিলেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান খুলনার কৃতি সন্তান ড. এনামুল হক লাবুর অকাল মৃত্যু : বিভিন্ন সংগঠনের শোক সাতক্ষীরা উপকূলে ফ্রেন্ডশিপের সাড়ে চার লক্ষ ম‍্যানগ্রোভ চারা রোপন কর্মসূচি শ‍্যামনগরের শংকরকাটি সুন্নিয়া দাখিল মাদরাসায় কর্মচারী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগে আদালতে মামলা। সাতক্ষীরায় জমি দখলে ব্যর্থ হয়ে এক সাংবাদিক ও তার পিতাকে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা

খুলনায়  খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির  চাল আত্মসাতের দায়ে আওয়ামীলীগ নেতার  ডিলারশীপ বাতিল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম সোমবার, ১ জুন, ২০২০
  • ৩৮৪ জন সংবাদটি পড়েছেন

খুলনা জেলার রূপসা উপলোয় খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় দরিদ্রদের চাল আত্মসাতের দায়ে সরদার মিজানুর রহমান (৪৫)এর ডিলারশীপ বাতিল করা হয়েছে। তিনি ৪ বছর ধরে ১৪ টি পরিবারের নামে কার্ড তৈরি করে চাল আত্মসাৎ করে আসছিলেন। যা জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা (এনএসআই) সংস্থার তথ্যের ভিত্তিতে তদন্ত করে প্রমান পেয়েছিল উপজেলা প্রশাসন।

আজ সোমবার (১ জুন) দুপুরে রূপসা উপজেলা খাদ্য বান্ধব কর্মসূচি কমিটির সভায় তার ডিলারশীপ বাতিল করা হয়। অভিযুক্ত মিজানুর রহমান উপজেলার শ্রীফলতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং রূপসা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার আবুল কাসেম ডাবলুর আপন ভাই। বর্তমানে ডিলার মিজানুর রহমান আত্মগোপনে আছেন বলে জানা গেছে।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, সরদার মিজানুর রহমান শ্রীফলতলা ইউনিয়নের প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ১০ টাকা মূল্যে বিতরণ করা খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর ডিলার। ২০১৬ সাল থেকে তিনি ১৪ টি পারিবারের কার্ডের চাল নিয়মিত আত্মসাৎ করে আসছিলেন। নাম থাকা সত্যেও চাল না পাওয়া ওই ১৪ জন ব্যাক্তি হলেন, উপজেলার নন্দনপুর গ্রামের শাহিদ শেখ, মো: সেলিম শেখ, মো: আনিচুর রহমান, মো: সাইদুর রহমান, খালেদা বেগম, মো: জাহিদ মুন্সি, মো: মুকুল শেখ, মো: কামাল শেখ, মো: রফিকুল শেখ, মমতাজ, নাসিম হাওলাদার, ওলিয়র হাসান, আসলাম খাঁ ও মো: ফারুক হাওলাদার। তারা জানান, তাদের নাম, ছবি ও ন্যাশনাল আইডি কার্ড নেওয়া হয়েছিল ২০১৬ সালে। তবে তাদের নামে কার্ড হয়েছে কিনা তা জানেন না। তারা কখনো ১০ টাকা মূল্যের এই চাল উত্তোলন করেননি। রূপসা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন আক্তার বলেন, ‘আমি এ বিষয়ে অভিযোগ পাওয়ার পর সরেজমিনে তদন্ত করতে গিয়েছিলাম। এসময় আমার সাথে রূপসা থানার ওসি ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ছিলেন। ভুক্তভূগীদের বক্তব্য নেওয়া হয়েছে। তারা জানিয়েছেন, ২০১৬ সাল থেকে তাদের এ চাল দেওয়া হচ্ছে না, এমনকি তারা জানোও না যে তাদের নামে কার্ড আছে। সুতারাং ডিলার সরদার মিজানুর রহমান যে তাদের চাল আত্মসাৎ করেছেন তাতে কোন সন্দেহ নেই। আমরা এর চূড়ান্ত প্রতিবেদন তৈরি করে জেলা প্রশাসককে অবগত করেছিলাম। আজ উপজেলা খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির সভায় তার ডিলারশীপ বাতিল করা হয়। এছাড়া তার জামানত ২০ হাজার টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। একই সাথে ওই ১৪ টি পরিবারের এ যাবৎ কালের ক্ষতির পরিমান নির্ণয় করার জন্য কমিটি গঠন করা হয়েছে। তা আদায় করা হবে। তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের পক্ষ থেকে তার বিরুদ্ধে কোন মামলার সুপারিশ করা হয়নি। ভুক্তভূগী পরিবারগুলো চাইলে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে পারবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu