শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০, ০১:০৪ পূর্বাহ্ন

 চীন-ভারত  সীমান্তে টানটান উত্তেজনাঃযুদ্ধের দামামা !

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন, ২০২০
  • ৭১ জন সংবাদটি পড়েছেন

চীন-ভারত  সীমান্তে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। উভয় দেশের সীমান্তে  শত শত সামরিক গাড়ি মোতায়েন করা হয়েছে। সীমান্তে  সংঘাত-সংঘর্ষের আশংকায় গোলাবারুদ ও সেনা মোতায়েন অব্যাহত আছে।গত সোমবার রাতে উভয় পক্ষের মধ্যে ভয়াবহ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে করে দুপক্ষের সেনা নিহতের ঘটনা ঘটে।

চীন দাবি করেছে- ভারতীয় সেনারা প্রথমে তাদের সীমানায় অনুপ্রবেশ করেছিল। অপর দিকে ভারত বলছে চীন মিথ্যা বলছে । সংঘর্ষের আগে ও পরে পুরো উপত্যকার সব ছবি স্যাটেলাইট ইমেজে ধরা পড়েছে। মঙ্গলবারের সংঘর্ষের স্যাটেলাইট ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। প্রকাশ করা ওই ছবিতে দেখা যায় ভারতের গালওয়ান নদী উপত্যকা বরাবর সারি সারি মোতায়েন করা রয়েছে চীনা সেনাবাহিনীর  সামরিক ট্রাক। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, সংঘর্ষের আগে অন্তত ২শ সশস্ত্র গাড়ি মোতায়েন করা হয়। এছাড়া বেশ কয়েকটি সেনা তাঁবুও টানানো হয়। সংঘর্ষের পরও উপত্যকা থেকে এগুলো সরানো হয়নি। গালওয়ান নদী উপত্যকা চীনের সীমানা রেখার পশ্চিমে ও আকসাই চীনের ভারতীয় অংশে অবস্থিত। ১৯৬০ সালে এ উপত্যকার পশ্চিম সীমা শায়ক নদী উপত্যকা সংলগ্ন পার্ব্ত্য অঞ্চল পর্যন্ত দাবি করেছিল চীন। ফলে ১৯৬২ সালে দুই দেশের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছিল অচলাবস্থা। এর কয়েকমাস পরেই ভারত ও চীনের যুদ্ধ বেধে যায়। আকসাই চিন এলাকা থেকে লাদাখ ঘিরে বয়ে চলা প্রাচীন গালওয়ান নদী ভারত ও চীনের চলমান সংঘাতের প্রধান কারণ। বর্তমানে ভূ-রাজনীতির ক্ষেত্রে এ উপত্যকাটি দুই দেশের কাছেই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

চীন ও ভারতের মধ্যে চলমান এই সংঘাত নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। একই সঙ্গে, উভয় পক্ষকে সর্বোচ্চ সংযম দেখানোর আহ্বান জানানো হয়েছে। গত মঙ্গলবার নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস এ আহবান জানান। অ্যান্তনিও গুতেরেসের পক্ষে তাঁর মুখপাত্র এরিক কানেকো বলেন, আমরা ভারত ও চীনের মাঝামাঝি সীমান্ত লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলে (এলএসি) সংঘর্ষ ও হতাহতের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করছি এবং উভয়পক্ষকে সর্বোচ্চ সংযম প্রদর্শনের আহবান জানাচ্ছি। তবে এটা ইতিবাচক যে, উভয় দেশ উত্তেজনা নিরসনে উদ্যোগ নিয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu