সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৪০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছে বলেই সকল ধর্মের মানুষ শান্তিতে ধর্ম পালন করতে পারছে–এড.সুজিত অধিকারী ডুমুরিয়ার ধামালিয়ায় যুবলীগ নেতা  মাসুদের বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন নৌ কর্মকর্তাকে মারপিটের অভিযোগে এমপি পুত্র এরফান সেলিমের বিরুদ্ধে মামলা ডিবি পুলিশের বিশেষ অভিযানে রূপসা থানা এলাকা হতে ১শ গ্রাম গাঁজা সহ ১ জন গ্রেফতার ডুমুরিয়া ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপিং নির্ণয় ঢাকা জেলা পু‌লিশ সুপা‌রের দুর্গা পূজায় উপহার সামগ্রী বিতরন বর্তমান সরকার সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে নিজ নিজ ধর্ম পালনে অনন্য দৃষ্টান্ত রেখেছে–এ্যাড. সুজিত যশোর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৮০ বোতল ফেন্সিডিলসহ আটক-১ খুলনায় ই-ফাইল বিষয়ে প্রশিক্ষণের উদ্বোধন ফকিরহাটে বৃদ্ধা মায়ের উপর সন্তানের অত্যাচারের প্রতিবাদ ও শাস্তির দাবিতেএলাকাবাসির মানববন্ধন

ইসলামী চিন্তাবিদ আহমদ শফীর জীবনাবসান

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৭৯ জন সংবাদটি পড়েছেন

হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী ইহ জগতে আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রজিউন)।  ১৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে পুরান ঢাকার গেন্ডারিয়ায় আজগর আলী হাসপাতালে তিনি  শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ।

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার আল-জামিয়াতুল তাহলিমা দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার সাবেক মহাপরিচালক ও হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা আহমদ শফী আলোচনায় আসেন নারী উন্নয়ন নীতিমালার বিরোধিতা করে। ২০১১ সালে তিনি এই নীতিমালার বিরুদ্ধে চট্টগ্রামে কর্মসূচি ঘোষনা করেন। তার আহবানে সাড়া দিয়ে বিক্ষোভ-প্রতিবাদে মাঠে নামেন ঢাকার আলেমরা। পরে ২০১৩ সালে ব্লগার রাজীব হায়দারের (থাবা বাবা) ব্লগিংকে কেন্দ্র করে সারাদেশেই বিক্ষোভে নামে কওমি মাদ্রাসার আলেম ও শিক্ষার্থীরা। তখন থেকেই পুরো দেশের আলেম সমাজের নেতৃত্বে চলে আসেন আহমদ শফী।

সারাদেশে আলোচিত আল্লামা আহমদ শফী ১৯২০ সালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থানার পাখিয়াটিলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ।  তিনি  ১০ বছর বয়সে হাটহাজারী মাদ্রাসায় ভর্তি হন। ১৯৪১ সালে তিনি ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসায় ভর্তি হয়ে চার বছর হাদিস, তাফসির, ফিকাহ শাস্ত্র অধ্যয়ন করে দাওরায়ে হাদিস সমাপ্ত করেন।

১৯৪৬ সালে দারুল উলুম হাটহাজারীতে শিক্ষক হিসেবে নিযুক্ত হন। ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠানের মজলিসে শূরার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মহাপরিচালক পদে দায়িত্ব পান। পরবর্তী সময়ে শায়খুল হাদিসের দায়িত্বও তিনি পালন করেন। ২০০৮ সালে তিনি কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড-বেফাকের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ২০১০ সালের ১৯ জানুয়ারি দারুল উলুম হাটহাজারী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ওলামা সম্মেলনে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ গঠন করা হয়। তিনিই এর প্রতিষ্ঠাতা আমির মনোনীত হন।
আল্লামা শাহ আহমদ শফীর দাবির মুখে ১১ এপ্রিল ২০১৭ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে এমএ (আরবি-ইসলামিক স্টাডিজ)-এর সমমান ঘোষণা করেন।

ব্যক্তিগত জীবনে তার স্ত্রী, দুই ছেলে, দুই মেয়ে, নাতি, নাতনি রয়েছে। আল্লামা আহমদ শফী কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড, আল হাইয়াতুল উলইয়া’র চেয়ারম্যান ও আন্তর্জাতিক মজলিসে তাহাফফুজে খতমে নবুওয়াত বাংলাদেশের সভাপতি ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu