শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:০৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
দিঘলিয়ার গাজীরহাট ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বিদেশী পিস্তল গুলিসহ তিনজনকে আটক করেছে র‌্যাব-৬ বিভ্রান্তিকর ও উস্কানীমুলক তথ্য এবং গুজব সামাজিকভাবে প্রতিরোধের আহ্বান-জেলা প্রশাসক পাইকগাছায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আটক ১ পাইকগাছায় নির্বাচনী কাজে বাধা, মারপিট, ইট-লাঠি মজুদ, ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের দাবীতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রেস ব্রিফিং রাজবাড়ীতে ১৩ জুয়াড়িসহ গ্রেপ্তার ১৪ ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে কৃষকদের নিয়ে উঠান বৈঠক রাজবাড়ীতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সাড়াশি অভিযানে মাদকদ্রব্যসহ গ্রেপ্তার- ৩ ৪ দফা দাবিতে সাতক্ষীরায় ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র শিক্ষক পেশাজীবী সংগ্রাম পরিষদের মানববন্ধন সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার খলিশা খালির দখলকৃত জমির মালিকানা দাবিতে সংবাদ সম্মেলন সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার নির্মাণাধীন ড্রেনে ইজিবাইক উল্টে আহত- ৩

বাগেরহাটে ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মাদরাসা সুপারের যাবজ্জীবন কারাদন্ড !

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৮৭ জন সংবাদটি পড়েছেন

বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ বাগেরহাটের শরণখোলায় পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অপরাধে উত্তর খোন্তাকাটা রাশিদিয়া স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসার সুপার ইলিয়াছ হোসেন জোমাদ্দার (৪৮) কে যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসাথে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারা কারাদন্ডাদেশ দিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার (০৫ নভেম্বর)দুপুরে বাগেরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. নূরে আলম-এ আদেশ দেন। দন্ডাদেশপ্রাপ্ত এ মামলার একমাত্র আসামি ইলিয়াছ হোসেন জোমাদ্দার (৪৮) বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার উত্তর খোন্তাকাটা রাশিদিয়া স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসার সুপার এবং একই উপজেলার পূর্ব রাজাপুর গ্রামের আব্দুল গফফার জোমাদ্দারের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানাযায়, ২০১৯ সালের ৮ অগাস্ট পঞ্চম শ্রেণীর চার ছাত্রী মাদ্রাসা সুপারের কাছে আরবি শিক্ষা নিতে আসে। সেখানে তারাতারি তিনজনকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়ে দেন সুপার। পরে ওই শিক্ষার্থীকে মাদ্রাসার লাইব্রেরিতে নিয়ে ধর্ষণ করেন সুপার ইলিয়াছ জোমাদ্দার। ধর্ষিত শিক্ষার্থীকে বিষয়টি মা-বাবাকে না জানানোর জন্য ভয় দেখায়। পরে শিশুটির রক্তক্ষরণ হয়। বিষয়টি জানতে পেরে ওই সুপার মেয়েটির বাড়িতে গিয়ে সিড়ি থেকে পড়ে গিয়ে আহত হয়েছে বলে তার পিতা মাতাকে জানায়। শিক্ষার্থীকে সুস্থ্য করতে নিজেই ঝারফুক ও পানি পড়া দেয় ওই সুপার । কিন্তু তাতেও সুস্থ্য না হওয়ায় সুপারের পরামর্শে মোরেলগঞ্জ উপজেলার একটি ক্লিনিকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে শিশুটির পিতা-মাতা। সিড়ি থেকে পরে যাওয়া আঘাতের কারণে রক্তক্ষরণ নয়, অন্য কারণ থাকতে পারে বলে চিকিৎসকরা পরিবারকে পরামর্শ দেয়।

পরে ১৯ আগস্ট রাতে নির্যাতিত ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে ইলিয়াস হোসেন নামের ওই সুপারের বিরুদ্ধে শরণখোলা থানায় মামলা করেন। মামলার পরে সুপার গা ঢাকা দেয়। থানা পুলিশ আসামীকে আটক করতে না পারায় ১৪ সেপ্টেম্বর পিবিআই, বাগেরহাট মামলা টেক ওভার করে। একই সালের ১৮ অক্টোবর পিবিআই মাদরাসা সুপারকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে।

১৩ নভেম্বর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন।৮জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহন ও যুক্তিতর্ক শেষে ১লা নভেম্বর এই মামলার রায় ঘোষনার দিন নির্ধারণ করেন আদালত। সেই অনুযায়ী বৃহস্পতিবার দুপুরে বাগেরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল অভিযুক্ত মাদরাসা সুপারকে এই দন্ড প্রদান করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu