শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:৪৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
খুলনায় মাস্ক না পরায় ২৭১ জনকে জরিমানা, আটক ১৫৫ খুবিতে টিস্যুকালচারের মাধ্যমে নতুন বৈশিষ্ট্যের ধানের জাত উদ্ভাবনে গবেষণা প্লটের নমুনা শস্য কর্তন রূপসায় সরকারি প্রণোদনার বীজ বিতরণ ডুমুরিয়ায় ঐতিহ্যবাহী দড়াটানা প্রতিযোগীতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান ড্রেনেজ এবং সড়কের চলমান উন্নয়ন কাজ পরিকল্পনামাফিক হতে হবে-কেসিসি মেয়র খুলনার আদালতে গোবিন্দ হত‌্যা মামলায় ৩ জনের মৃত্যুদন্ড মাস্ক না পরায় ডুমুরিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে  জরিমানা এ-টেক্স ইন্টারন্যাশনাল লি: এর সহযোগিতায় অনুশীলন মজার স্কুলের ১২০জন শিক্ষার্থীকে খাদ্য সামগ্রী প্রদান  রূপসায় আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবসে আলোচনা সভা ও মানববন্ধন ডুমুরিয়ায় চিংড়িতে জেলি পুশের অপরাধে ডিপো মালিককে জেল-জরিমানা

রূপসা-শেখপুরা খেয়াঘাটে ২ টাকার পরিবর্তে আদায় করা হয়৫ টাকা !

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম বুধবার, ১১ নভেম্বর, ২০২০
  • ৭৭ জন সংবাদটি পড়েছেন

কৃষ্ণ গোপাল সেন, রূপসাঃ রূপসা-শেখপুরা ঘাটে শেখপুরা বাজার এলাকার কয়েকজন প্রভাবশালী যুবকের নেতৃত্বে যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক স্থাপনকৃত বোর্ডের নির্দেশনা উপেক্ষা করে জনসাধারনের কাছ থেকে ২ টাকার পরিবর্তে ৫ টাকা পারানি আদায় অব্যহত রয়েছে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী জনসাধারণ একাধিক অভিযোগ করেও বিষয়টি সুরাহা পাননি।

সরেজমিনে ঘুরে ভুক্তভোগী জনসাধারনের সাথে আলাপ করে বিষয়টি সত্যতা পাওয়া গিয়েছে। ঘাটে গিয়ে কথা হয় চাদপুর এলাকার মাঝি টিটোর সাথে। তিনি নিজে স্বীকার করেন ২ টাকার পরিবর্তে মাথাপিছু ৫ টাকা হরে আদায় করা হয় এবং প্রতি ভ্যান ১৫ টাকা হারে নেওয়া হয়। বামনডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা ট্রলারে পারাপাররত যাত্রী শেখ জাবেদ আলী বলেন এখানে দু’পাড়ে সাইনবোর্ডে জনপ্রতি ২ টাকা হরে নেওয়ার কথা থাকলেও মাঝিরা জনপ্রতি ৫ টাকা না হলে নৌকা ছাড়তে চাই না। শেখপুরা গ্রামের আলামিন, মধু শেখ এবং আনন্দনগর গ্রামের আকবর শেখ প্রতিনিয়ত এ ঘাটে ট্রলার চালায়। তারা জনসাধারণকে জিম্মী করে ২ টাকার প্রতিবর্তে ৫ টাকা হারে আদায় করছে দীর্ঘদিন ধরে। শুক্রবার এবং সোমবার সপ্তাহের এ দুটি দিনে দুপাড়েই হাট বসে। তখন অন্যান্য দিনের তুলনায় লোক পারাপার হয় অনেক বেশি এবং মাছের ড্রাম পার হয় প্রায় ৫ শতাধিক। অভিযোগ মতে উক্ত প্রভাবশালী মাঝিরা ড্রাম প্রতি ৫০ টাকা হারে আদায় করলেও প্রতিবাদ করার কেউ নেই।

জানাগেছে, ভোর ৫ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত উক্ত ঘাট এলাকায় প্রতিদিন প্রায় ৫ সহ¯্রাধিক লোক পার হয়। সে মোতাবেক উক্ত ঘাট এলাকায় মাঝিদের ১০ হাজার টাকা আদায় হওয়ার কথা থাকলেও সেখানে ২৫ হাজার টাকা জনসাধারনের কাছ থেকে প্রতিদিন আদায় করা হচ্ছে। আজগড়া গ্রামের সুশান্ত এসেছিলেন শিয়ালী বাজারে মাছ বিক্রি করতে। তিনি জানান হাড়ি প্রতি ১৫ টাকা হারে আদায় করা হচ্ছে এবং বিষয়টির প্রতিবাদ করলে তাকে নৌকা থেকে নেমে যেতে বলা হয়। একই অভিযোগ করলেন কচাতলা বাজার এলাকার বিনয় মজুমদার, শেখপুরা এলাকার আরিফুল সহ পারাপাররত একাধিক ব্যক্তি। সূত্র মতে উক্ত ঘাট এলাকা থেকে মাঝিদের দ্বারা যাত্রীদের কাছ থেকে নেওয়া টাকার একটি বড় অংশ শেখপুরা বাজার এলাকার ৩/৪ জন প্রভাবশালীকে প্রদান করা লাগে। অনেকের অভিযোগ এ কারনেই জনসাধারনের কাছ থেকে ২ টাকার পরিবর্তে ৫ টাকা, প্রতি ভ্যান ১০ টাকার পরিবর্তে ১৫ টাকা, প্রতি মাছের ড্রাম ২০ টাকার পরিবর্তে ৫০ টাকা করে দীর্ঘদিন ধরে আদায় অব্যহত আছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকার সুধীজনের বক্তব্য উক্ত এলাকায় ব্রীজ না হলে এমন অবস্থার পরিবর্তন হবেনা।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসরিন আক্তার জানান, উক্ত ঘাট এলাকায় আকস্মিক ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে এবং দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu