শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
রূপসায় এমপি সালাম মূর্শেদীর পক্ষে শ্রমিকদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ যোগ্য পিতার যোগ্য নেতা শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়নে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন- রূপসায় এ্যাড. সুজিত আওয়ামী যুবলীগ এর চেয়ারম্যান ও সাধারন সম্পাদকের রোগমুক্তি কামনায় রূপসায় যুবলীগের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল খুলনায় সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্র নিহত রূপসায় জ‌মিজমা সংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-২ ফকিরহাটে জমি ও গৃহ প্রদান বিষয়ে ইউএনও এর প্রেস ব্রিফিং ফকিরহাটে মাসব্যপি ফুটবল প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠান নবাগত জেলা প্রশাসকের সাথে ফকিরহাটে সূধীজনদের মতবিনিময় সভা  ডুমুরিয়া থানা পুলিশের অভিযানে মাদক চোরাকারবারি আটক ডুমুরিয়া থানা পুলিশের অভিযানে নারীসহ ১৯ আসামী গ্রেপ্তার

ডুমুরিয়ায় একই জমিতে একাধিক ফসল: সমন্বিত সবজি চাষে অধিক লাভের স্বপ্ন দেখছেন চাষীরা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম শনিবার, ৯ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৪৬ জন সংবাদটি পড়েছেন
লতিফ মোড়ল, ডুমুরিয়াঃসমন্বিত সবজি চাষে স্বপ্ন দেখছেন খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার চাষীরা। একইসঙ্গে একাধিক শস্য উৎপাদন করে লাভবান হচ্ছেন কৃষকেরা। ইতোমধ্যে সমন্বিত সবজি চাষ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। কৃষি বিভাগ চাষীদের সমন্বিত সবজি চাষে উদ্বুদ্ধ করে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিচ্ছে ।
উপজেলার হোগলাডাঙ্গা গ্রামের কৃষক আব্দুল ওয়াদুদ ৩৩ শতক জমিতে হলুদের চাষ করেছেন। একই জমিতে তিনি রোপণ করেছেন মরিচের চারাও। একসঙ্গে একই জমিতে  রোপন করেছেন বেগুন গাছ। দুই ধরনের সবজি চাষ করলেও  কোনটারই ফলনে প্রভাব পড়েনি। বেগুন আর মরিচ দুটোরই ফলন ভাল হয়েছে। প্রতিদিনই বাজারে বিক্রি করছেন সেই সবজি।
আব্দুল ওয়াদুদ ছাড়াও খর্নিয়া গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেন, পাশ খালী  গ্রামের রহিমা বেগম, হাজিবুনিয়া গ্রামের জগদীশ মন্ডল, খামারবাড়ি গামের সুব্রত মন্ডলসহ বেশ শতাধিক কৃষক সমন্বিত সবজির আবাদ করেছেন।
জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার হোগলাডাঙ্গা গ্রামের কৃষক আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, অন্যান্য সবজির চেয়ে মশলা জাতীয় ফসল হলুদ আবাদ লাজনক। তাছাড়া একই সাথে বেগুনের বাজার মূল্যও বেশি। মরিচের দামও কম নয়। ৩৩ শতক জমিতে  সবমিলিয়ে ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। মেটে আলু বিক্রি করেছি ২৫ হাজার টাকা, মরিচ বিক্রি হয়েছে ৩৫ হাজার টাকা। বেগুণ বিক্রি করেছি ৩৫ হাজার টাকার মত। এছাড়া আশা করছি হলুদ বিক্রি হবে প্রায় ১ লাখ টাকা।
ডুমুরিয়া উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, মরিচের সঙ্গে ফুলকপি কিংবা বাঁধাকপি, বেগুনের সঙ্গে মরিচ, আলুর সঙ্গে মরিচ, মুলা, পালংক শাক ও ধনিয়া পাতা ইত্যাদি একযোগেই চাষাবাদ করছে এসব অঞ্চলের কৃষক। অপরদিকে আলুর ক্ষেতে মাচায় শিম বা লাউ চাষও করা হচ্ছে।
একসঙ্গে একাধিক সবজি চাষের দিকে ঝুঁকেছেন কৃষকরা। এতে একটা ফসলে লোকসান হলেও দ্বিতীয় ফসলে লাভ হবেই। এ কারণে কৃষকের লোকসানের সম্ভাবনা নেই।
খর্নিয়া গ্রামের কৃষক জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন,  ২/৩ বিঘা জমিতে হলুদসহ ফুলকপি ও বাঁধাকপি একসঙ্গে আবাদ করেছি। এছাড়াও বেগুন-মরিচ, আলু, লাউ, মিস্টি কুমড়া চাষ করেছি। বেশ কয়েকদিন আগেই বেশিরভাগ ফসল বিক্রি শুরু করেছি।
খামারবাড়ি গ্রামের চাষী সুব্রত মন্ডল জানান, কৃষি অফিসের পরামর্শ মতে এক বিঘা জমিতে উচ্চ হলুদের সাথে ফলনশীল বেগুন চাষ করেছিলাম। মৌসুমের শুরুতেই বেগুন বিক্রি করতে পেরেছি। উচ্চ ফলনশীল বেগুন চাষে বেশ লাভ হয়েছে। একই জমিতে মরিচও চাষ করেছি। তাও পরিপক্ক হতে শুরু করেছে।
স্থানীয় কৃষকেরা জানান, জমিকে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে জানলে চাষাবাদে লাভ আসবেই। আগের দিনে কৃষকেরা এক ধরনের ফসল চাষে অভ্যস্ত ছিল। বর্তমানে সেটা আর নেই। বেশিরভাগ চাষিই একাধিক ফসল চাষে লাভবান হচ্ছে।
ডুমুরিয়া উপজেলা কৃষি অফিসার মো: মোছাদ্দেক হোসেন জানান, শীতকালীন সবজির মৌসুমে  ডুমুরিয়ার অধিকাংশ চাষী একইসঙ্গে একাধিক ফসল চাষ করছে। একাধিক ফসল চাষে কৃষকের যেমন বেশি মুনাফা হয় তেমনি জমির উর্বরতা শক্তিও বাড়ে। আমরা তাদের উৎসাহ ও সহযোগিতা করছি। তিনি বলেন ডুমুরিয়ায় এবার ৬০ হেক্টর  অর্থাৎ ৪২০ বিঘা জমিতে হলুদসহ অন্যান্য সবজির সমন্বিত ফসলের আবাদ হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu