সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
পাইকগাছায় পুলিশের অভিযানে একাধিক মামলার আসামী সন্ত্রাসী হালিম শিকারী আটক  ডুমুরিয়ার আটলিয়ায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপন রূপসা থানার উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ পালিত রূপসায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ পালিত ডুমুরিয়া সদর ইউনিয়নের  গোলনা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত পাইকগাছার চাঁদখালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আ’লীগের চুড়ান্ত প্রার্থী ৩ জন গারো নেতা পরেশ চন্দ্র মৃ এর ২৩ তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হলো ডুমুরিয়া থানা পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠান দিঘলিয়া থানা পুলিশের উদ্যোগে ৭ই মার্চের আলোচনা সভা নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ডুমুরিয়ায় ৭ ই মার্চ উদযাপিত

পাইকগাছায় সার্ভেয়ার ও বীর মুক্তিযোদ্ধা কে গালিগালাজঃ ইউএনওর কাছে অভিযোগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম সোমবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১২৪ জন সংবাদটি পড়েছেন
পাইকগাছা প্রতিনিধিঃ পাইকগাছায় মুজিব বর্ষে গৃহহীনদের মাঝে ঘর বরাদ্ধ জন্য সরকারী খাস জমি উদ্ধার করতে যেয়ে স্থানীয় ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার ও স্থানীয় এক বীর মুক্তিযোদ্ধা কে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ ও হুমকি দেয়ার ঘটনা ঘটেছ। এঘটনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে  বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শেখ জামাল হোসেন অভিযোগ দিয়েছন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে গৃহহীনদের মাঝে ঘর বরাদ্ধের জন্য উপজেলার মালথ গ্রামের বীর যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব  শেখ জামাল হোসেন এলাকার কিছু গৃহহীনের মাঝে ঘর বরাদ্ধের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে আবেদন করেন। আবেদন পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী তাকে মালথ এলাকায় সরকারী খাস জমির সন্ধান দিতে বলেন। তিনি ১০ জানুয়ারি রবিবার উপজেলা ভূমি অফিসের সার্বেয়ারের সাথে নিয়ে মালথ এলাকায় গিয়ে সরকারী  খাস জমি পরিমাম করতে গেলে মালথ গ্রামের মৃত আনসার মোড়লের পুত্র মহাসিন মোড়ল, জিন্নাত মোড়ল, ইসলাম মোড়ল এসে সার্বেয়ারকে মারতে উদ্দ্যোত হয় এবং মুক্তিযোদ্ধা  জামাল হোসেন কে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও অসৌজন্য মুলক আচারণ করে। এবং তারা বলতে থাকে যে এখানে কোন খাস জমি নেই। এখানে মুজিব বর্ষের কোন ঘর হবে না। আমরা ক্ষমতাসীন দলের এক শীর্ষ নেতার পরম আত্বীয়। আমাদের কেউ কিছু করতে পারবেনা বলে হুমকি দেন। নিজের আত্মসম্মানের কথা বিবেচনা করে বীর মুক্তিযোদ্ধা জামাল হোসেন এ অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযোগ ও গালিগালাজ সম্পর্কে ইসলাম মোড়ল বলেন, আমাদের জমির পাশে অল্প খাস জমি আছে। আমাদের না জানিয়ে জমি-জমা মাপের জন্য  আমাদের সাথে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা জামাল হোসেনের সাথে একটু কথাকাটাকাটি হয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে বসে বিষয়টি মিমাংসা হয়ে গেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu