রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০৫:১৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
ডুমুরিয়ায় ছাদ থেকে পড়ে বীর মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু বাবা- মায়ের উপর অভিমান করে ডুমুরিয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে একমাত্র ছেলের আত্মহত্যা! ডুমুরিয়ায় স্কুল পড়ুয়া শিশু কন্যাকে ধর্ষণের চেষ্টা: থানায় মামলা রূপসায় অনুশীলন মজার স্কুলের নবনির্মিত ভবনের শুভ উদ্বোধন ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করোনা সংক্রমণ রোধে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মেনে চলার আহ্বান সালাম মূর্শেদীর বঙ্গবন্ধুকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার জন্য নানাবিধ অপকৌশল অব্যাহত রয়েছে-রূপসায় সালাম মূর্শেদী বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আদ্যপান্ত রূপসায় ব্যাচ ৯৫ সংগঠনের ইফতার মাহ্ফিল অনুষ্ঠিত মাটি খনন কালে ডুমুরিয়ার আটলিয়া থেকে পাথরের কৃষ্ণ মুর্তি উদ্ধার। ডুমুরিয়ায় শিল্পপতি আফজাল হোসেন জোয়ার্দারের উদ্যোগে উপহার সামগ্রী বিতরণ

করোনায় কেড়ে নিলো চলচিত্রাঙ্গনের মিষ্টি মেয়ে কবরীর কান্না !

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১
  • ৪৫ জন সংবাদটি পড়েছেন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃদেশীয় চলচিত্র শিল্পে অনন্য এক সংযোজনার নাম কবরী। গত শুক্রবার করোনায় কেড়ে নিল কবরীর কান্না। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭১। গত ৫ এপ্রিল করোনা সংক্রমণের রিপোর্ট পজিটিভ আসে তাঁর। শুক্রবার গভীর রাতে ঢাকার একটি হাসপাতালে মৃত্যু হয় কবরীর।

১৯৫০ সালের ১৯ জুলাই চট্টগ্রামের বাঁশখালিতে জন্ম গ্রহন করেন কবরী। তাঁর প্রকৃত নাম মিনা পাল। বাবা শ্রীকৃষ্ণদাস পাল এবং মা লাবণ্য প্রভা পাল।

ঋত্বিক ঘটকের ছবি ‘তিতাস একটি নদীর নাম’-এ মূল চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। এ ছাড়া দু’বাংলার অসংখ্য ছবিতে অভিনয়ের পাশাপাশি দীর্ঘদিন সক্রিয় ছিলেন রাজনীতিতেও। পরিচালনার কাজও করেছেন বাংলাদেশের জাতীয় পুরষ্কার জয়ী এই অভিনেত্রী।

কাশি এবং জ্বরের উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন কবরী। তবে করোনা সংক্রমণের রিপোর্ট পজিটিভ আসার দু’দিন পর ৭ এপ্রিল শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় তাঁর। চিকিৎসকরা তাঁকে অবিলম্বে আইসিইউতে রেখে চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দিলেও তা সম্ভব হয়নি। বাংলাদেশের একটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ৮ এপ্রিল দুপুরে ঢাকার একটি হাসপাতালে কবরীর জন্য আইসিইউ পাওয়া যায়। পরে বৃহস্পতিবার বিকেলে তাঁকে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হলেও শেষপর্যন্ত বাঁচানো যায়নি কবরীকে। টানা ১৩ দিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার স্থানীয় সময় রাত ১২টা ২০ নাগাদ মৃত্যু হয় অভিনেত্রীর। বাংলাদেশের ওই সংবাদমাধ্যমকে অভিনেত্রীর মৃত্যুর খবর জানিয়েছেন তাঁর ছেলে শাকের চিশতি।

১৯৬৪ সালে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় কবরীর। পরে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ঢাকা থেকে কলকাতায় আসেন। সেসময় বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে ভারতে জনমত তৈরির চেষ্টাও করেছিলেন কবরী। বিভিন্ন সভা-সমিতি ও অনুষ্ঠান করেছেন। বক্তৃতা দিয়েছেন। পরে ১৯৭৩ সালে ঋত্বিক ঘটক পরিচালিত ‘তিতাস একটি নদীর নাম’ ছবিতে অভিনয় করেন। ১৯৭৮ সালে ‘সারেং বউ’ ছবিতে তাঁর অভিনয় বাংলাদেশের জাতীয় পুরষ্কারের সম্মান এনে দেয় তাঁকে। পরে রাজনীতিতেও আসেন কবরী। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৪ পর্যন্ত বাংলাদেশ আওয়ামী লিগের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। ৬ বছর বাংলাদেশের সংসদের সদস্যও ছিলেন তিনি। নারায়ণগঞ্জ-৪ কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছিলেন ভোটে। পরে অবশ্য রাজনীতি ছেড়ে ফের অভিনয় এবং ছবি পরিচালনায় ফিরে আসেন।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu