মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৬:৫৬ পূর্বাহ্ন

একজন জনবান্ধন ইউএনওর বেদনাদায়ক বিদায় ও কিছু কথা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম শনিবার, ১৫ মে, ২০২১
  • ২২২ জন সংবাদটি পড়েছেন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ খুলনা জেলার রূপসা উপজেলার সদ্য বিদায়ী জনবান্ধব ও জননন্দিত ইউএনও ছিলেন নাসরিন আক্তার। ১ বছর ৮ মাস দায়িত্ব পালনকালে তিনি অত্যান্ত সাবলীল ভাবে সাহসিকতার সংগে প্রশাসনিক দায়িত্ব পালন করে জনমনে নন্দিত হয়েছেন।

করোনা কালীন দূর্যোগে সরকারের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে তিনি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাঠে-ময়দানে কাজ করে রূপসার মানুষের মনের মনিকোঠায় জায়গা করে নিয়েছেন। গভীর রাতে খবর পেয়ে করোনাক্রান্ত মৃত ব্যক্তির সৎকার করার জন্য ঘটনাস্থলে ছুটে গেছেন। দরিদ্র সুবিধা বঞ্চিতদের নানা আবদার অভিযোগ খুব কাছ থেকে শুনে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা,ভিজিডি, ভিজিএফ সহ নানা প্রকল্পের মাধ্যমে দরিদ্র সুবিধা বঞ্চিতদের সুবিধা দিয়েছেন তিনি।

সরকারের জমি আছে ঘর নাই এবং জমিও নাই ঘরও নাই প্রকল্পের আওতায় সরকারের পক্ষ থেকে অসংখ্য মানুষের আশ্রয় গড়ে দিয়েছেন। তিনি থাকা কালীল সময়ে কোনো রকম হয়রানি ছাড়া মানুষ ভূমি সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান পেয়েছেন। তিনি ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ভূমি খেকোদের কবল থেকে মোটা অংকের জরিমানা সহ সরকারের খাসজমি উদ্ধার করে আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজে লাগিয়েছেন। তিনি ৩ থেকে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা আদায় করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন। যা জনমনে প্রশংসীত হয়েছে।

এর বাইরেও তিনি মানবিক মা হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছিলেন। সে কথা নিশ্চয় কেউ ভুলে যায়নি। ফেসবুকের ম্যাসেঞ্জারে কেউ একজন তাকে জানিয়েছিলেন আইচগাতী এলাকায় দুটি শিশু কয়েকদিন যাবত রাস্তার পাশে ঘুমিয়ে থাকে। তিনি তাৎক্ষণিকভাবে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় শিশু দুটিকে উদ্ধার করে আদর স্নেহ দিয়ে মমতাময়ী মায়ের আসনে আশ্বিন হয়ে ছিলেন। তার অকৃত্রিম ভালবাসা পেয়ে স্নেহ বঞ্চিত শিশু দুটি তাকে জড়িয়ে ধরে চুমু খেয়ে ছিল তার গালে। সাংবাদিকের ক্যামেরাবন্দী সেই ছবি বিভিন্ন গণমাধ্যম সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হলে বেশ হৈচৈ পড়ে গিয়েছিল। এইভাবে তিনি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড করে একদিকে যেমন জনগণের মন জয় করে ছিলেন অন্যদিকে সরকারের উচ্চ মহলকে আকৃষ্ট করতে সক্ষম হয়ে ছিলেন। যার ধারাবাহিকতায় তিনি পদন্নোতি জনিত বদলির কারনে সম্প্রতি রূপসা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এক বেদনা বিধুর বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেখানে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ ফুল দিয়ে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

মানুষের বিনম্র শ্রদ্ধা ভালবাসা তার কোমলমতি হৃদয়টাকে স্পর্শ করতে সক্ষম হয়েছে বোধহয়। কতটা শ্রদ্ধাবোধ থাকলে এমন দৃশ্যের অবতারণা হয়। ছবিটি ভাল করে খেয়াল করে দেখেন রূপসা ঘাটের কোয়েলের ডিম বিক্রেতা মনিরুজ্জামান ব্যাপারী ইউএনও নাসরিন আক্তারকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এ থেকেই অনুমান করা সম্ভব রূপসার আম-জনতার কাছে তিনি উদাহরণ হয়ে রইলেন। আমরা রূপসা বাসী তার উত্তোরাত্তোর সফলতা কামনা করছি। পাশাপাশি রূপসার নবাগত ইউএনও জনস্বার্থে সরকারি আইন ব্যবহার করে রূপসার মানুষের অকৃত্রিম ভালবাসায় সিক্ত হবেন এমনটিই আশা করছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu