বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ০২:৫২ পূর্বাহ্ন

জরিমানার টাকা আদায় করতে বগুড়ায় ইউএনওর বিরুদ্ধে ছাগল বিক্রীর অভিযোগ !

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম শুক্রবার, ২৮ মে, ২০২১
  • ১৩৬ জন সংবাদটি পড়েছেন

সংবাদদাতাঃউপজেলা পরিষদের ফুলগাছ খাওয়ার অপরাধে ছাগলকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করেছেন বগুড়ার জেলার আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সীমা শারমিন।

ছাগলের মালিক জরিমানা দিতে অক্ষমতা প্রকাশ করায় ৯ দিন আটকে রেখে ছাগলটি ৫ হাজার টাকায় বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে। ছাগলের মালিক সাহারা বেগমকে না জানিয়ে ছাগল বিক্রীর ঘটনাটি জনমনে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

অভিজ্ঞরা বলছেন, ইউএনও আইনত এমন জরিমানা করতে পারেন না। কারণ ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে আদেশ দিতে হলে অভিযুক্তের অপরাধ স্বীকার করার বাধ্যবাধকতা আছে।

ছাগলের মালিক সাহারা বেগম আদমদীঘি উপজেলা পরিষদ চত্বরের ডাকবাংলো সংলগ্ন এলাকায় বসবাস করেন। তার স্বামীর নাম জিল্লুর রহমান। গত ১৭ মে তার ছাগলটি হারিয়ে যায়। অনেক জায়গায় তিনি ছাগলটির সন্ধান করেন। পরে ছাগলটি ইউএনওর এক নিরাপত্তাকর্মীর কাছে রয়েছে বলে স্থানীয়রা তাকে জানান।

তিনি ইউএনওর বাসার পাশে এক নিরাপত্তাকর্মী ছাগলকে ঘাস খাওয়াতে দেখে ছাগল ফেরত চাইলে দেয়া যাবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন ওই নিরাপত্তাকর্মী।

পরে তিনি ইউএনওর কাছে গেলে তিনি তাকে বলেন, ‘ফুলগাছের পাতা খাওয়ার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার টাকা দিয়ে ছাগল নিয়ে যান।’

কিন্তু ছাগল ফুলগাছ খাবে- এ জন্য ২ হাজার টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন সাহারা বেগম। এর মধ্যে ইউএনওর গৃহকর্মী তাকে ডেকে টাকা নিয়ে আসতে বলেন। সেই গৃহকর্মীর কাছে তিনি জানতে চান কেন তাকে টাকা দেবেন?  তাকে জানানো হয়, ২২ মে তার ছাগলটি ৫ হাজার টাকায় বেচে দেয়া হয়েছে। এ থেকে জরিমানা বাবদ ২ হাজার টাকা কেটে রাখা হয়েছে। বাকি টাকা যেন নিয়ে আসেন। তবে সাহারা বেগম সেই টাকা আর আনেননি।

ইউএনও সীমা শারমিন জানান, উপজেলা চত্বরে একটি পার্ক করা হয়েছে। সেখানে বিভিন্ন জায়গা থেকে ফুলের গাছ নিয়ে এসে লাগানো হয়েছে। কিন্তু এখানে ওই ছাগল এসে গাছের ফুলগুলো খেয়ে নিয়েছে কয়েকবার।

‘এ বিষয়ে ছাগলের মালিককে সতর্ক করা হয়েছে। কিন্তু উনি কথা শোনেননি। এ কারণে গণ-উপদ্রব আইনে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।’

ছাগল বেচে দেয়া হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নে ইউএনও বলেন, ‌‘ছাগল বিক্রি করা হয়নি। একজনের জিম্মায় রাখা হয়েছে। মালিক চাইলে টাকার বিনিময়ে ছাগল ফেরত পাবেন।’

 

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu