বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০৫:৪৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
জেলা প্রশাসকের সাথে সাতক্ষীরা পানি বিশুদ্ধকরণ সরবরাহকারী সমিতির মতবিনিময় সুন্দরবনের মাছ কাকঁড়ার উপর নির্ভরশীল উপকূলীয় এলাকার কয়েক হাজার জেলে বাওয়ালী রূপসায় শেখ কামালের ৭২ তম জন্ম বার্ষিকী পালিত সুন্দরগঞ্জে দিন-দুপুরে বাড়ি চুরির অপরাধে যুবক জেলহাজতে পাইকগাছায় বেপরোয়া মোটরবাইক কেড়ে নিল বৃদ্ধ আবুল কাশেমের প্রান পাইকগাছার চাঁদখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি ইয়াসির আরাফাতের বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মুত্যু ! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন রূপসায় ভ্রাম্যমান টিকা নিবন্ধন কার্যক্রমের উ‌দ্বোধন রূপসায় ব্যাচ-৯৫ এর অক্সিজেন ব্যাংক ও ব্লাড ব্যাংকের শুভ উদ্বোধন  শ্যামনগরে ইউনিয়ন পর্যায়ে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রদান বিষয়ে মতবিনিময় সভা ।

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে ক্ষেতের তোষাপাট নিয়ে হতাশায় চরাঞ্চলের কৃষক

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম রবিবার, ২০ জুন, ২০২১
  • ৯৯ জন সংবাদটি পড়েছেন

 গাইবান্ধা থেকে সফিকুল ইসলাম রাজাঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে তিস্তার ভাঙনের মুখে হাজারও হেক্টর জমির তোষাপাট। একদিকে ভাঙন অন্যদিকে এখনও অনেক পরিপোক্ত হয়নি তোষাপাট । সে কারণে তোষাপাট কাটা সম্ভব হচ্ছে না। পরিশ্রমের ফসল চোখের সামনে বিলিন হচ্ছে নদীগর্ভে। কিছুই করার নেই, শুধু নিবার্ক হয়ে অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে চরের কৃষকরা।

তিস্তার তীব্র ভাঙনের ভয়াল চিত্র দেখে হতবাক হয়ে পড়েছে চরবাসি। তিস্তার এই ভয়াল রুপ যেন কালের বিবর্তন। দিন রাতের ব্যবধানে চলে যাচ্ছে বসতবাড়িসহ শতাধিক একর আবাদি জমি। ভাঙন রোধে বিভিন্ন এলাকায় ফেলা হচ্ছে জিও ব্যাগ ও বালুর বস্তা । ভাঙনের মুখে হাজারও বসতবাড়ি ও ফসলি জমি। ভাঙনের শঙ্কায় নদী পাড়ে বসবাসরত পরিবারদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে।

যেনো কোন ভাবেই থামছে না তিস্তার ভাঙন। তিস্তার অব্যাহত ভাঙনে বেসামাল হয়ে পড়েছে চরাঞ্চলের পরিবারগুলো। বছরের ব্যবধানে হাজার একর আবাদি জমিসহ দেড় হাজার বসত বাড়ি নদীগর্ভে বিলিন হয়ে গেছে।  চলতি মৌসুমে বিশেষ করে উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়নের উজান বোচাগাড়ি, পাঁচপীর খেয়াঘাট, তারাপুর ইউনিয়নের খোদ্দা, লাঠশালা ও হরিপুর ইউনিয়নের কাশিম বাজার খেয়াঘাটসহ কাপাসিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন চরে তীব্র ভাঙন দেখা দিয়েছে। ভাঙন রোধে হরিপুর, শ্রীপুর ও কাপাসিয়া ইউনিয়নের ভাঙন কবলিত এলাকায় বালুর বস্তা ফেলা হচ্ছে।

চলতি মৌসুমে উপজেলায় ৪ হাজার ২৭২ হেক্টর জমিতে তোষাপাট চাষাবাদ হয়েছে। এর মধ্যে সিংহভাগই চাষাবাদ হয়েছে তিস্তার চরাঞ্চলে। গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তারাপুর, বেলকা, হরিপুর, চন্ডিপুর শ্রীপুর ও কাপাসিয়া ইউনিয়নের উপর দিয়ে প্রবাহিত রাক্ষুসি তিস্তানদী এখন তার গতিপথ হারিয়ে এবং পলি জমে একাধিক শাখা নদীতে পরিণত হয়েছে। পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ওইসব শাখা নদীতে এখন স্রোত দেখা দিয়েছে। স্রোতের কারণে উজানের ভাঙনে তিস্তার বালু চরের সবুজের সমারহ ও বসতবাড়ি বিলিন হচ্ছে নদীগর্ভে।

বেলক হাজারির হাট গ্রামের রিয়াজ মিয়া জানান, তিনি তিন বিঘা জমিতে তোষাপাট আবাদ করেছে। এরমধ্যে এক বিঘা জমির তোষাপাট ইতিধম্যে নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। এখনও ক্ষেতের বেশিভাগ তোষাপাট হয়নি। সে কারণে কাটা যাচ্ছে না। তাই তোষাপাট নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছি।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ সৈয়দ রেজা-ই মাহমুদ জানান, উঠতি তোষাপাট নদীগর্ভে বিলিন হওয়া হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছে চরের কৃষকরা। চলতি মৌসুমে চরে তোষাপাটের ভাল ফলন হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu