বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ০১:৫৭ পূর্বাহ্ন

ব্রাক,আশা,রিক,দীপ,সাগরিকা,ব্যুরো ইত্যাদি এনজিওর কিস্তি আদায়ে মহাদুর্ভোগে মানুষ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম সোমবার, ২৮ জুন, ২০২১
  • ১৬২ জন সংবাদটি পড়েছেন

 নোয়াখালী থেকে শাহাদাৎ বাবুঃ নোয়াখালী সদর উপজেলা সহ প্রায় সকল উপজেলাতেই করোনায় লকডাউন এর বর্তমান পরিস্থিতিতে এনজিও গুলো থেমে নেয় তাদের কিস্তি আদায়ে, এনজিও কর্মীরা লকডাউনের মধ্যে গ্রামে- গ্রামে কিস্তি আদায় করতে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। এসব এনজিও কর্মীদের অত্যাচারে নাজেহাল হয়ে পড়েছে নিম্ন আয়ের ঋন গ্রহীতা দরিদ্র মানুষ৷ ঋনের কিস্তি দিতে হিম- শিম খাচ্ছে তারা।

গ্রাম গঞ্জের ছোট খাট অধিকাংশ ব্যবসায়িরা ঋণ নিয়ে ব্যবসার কার্যক্রম চালান। এছাড়া অনেকে এনজিও থেকে ঋন নিয়ে ইজিবাইক, থ্রি-হুইলার, ভ্যান, নছিমন গাড়ি সহ বিভিন্ন যানবাহন কিনে ভাড়ায় চালিয়ে তা থেকে আয় করে জীবিকা নির্বাহ করেন ও ঋণের কিস্তি দেন।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হওয়ার পর থেকে ধীরে- ধীরে মৃত্যু ও আক্রান্তের হার বাড়তে থাকায় সরকার বিভক্ত ভাবে নোয়াখালী জেলা সহ বিভিন্ন জেলায় ও দেশ জুড়ে ধাপে ধাপে কঠোর লকডাউন ঘোষনা করেছে। ফলে সরকারি- বেসরকারি অফিস- আদালত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মুখি বিভিন্ন যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ার ফলে আয় রোজগার বন্ধ হয়ে যায় অনেক মানুষের। এমন পরিস্থিতিতে এনজিও ঋণের কিস্তি দিতে হিম শিম খাচ্ছেন নিম্ন আয়ের ঋণ গ্রহীতারা।

এনজিওগুলো বিবাহিত নারীদের সমিতির মাধ্যেমে ঋন দিয়ে থাকে। এমন সময়ে এ সকল ভুক্তভোগি খেটে খাওয়া ঋণ গ্রহীতা যখন তাদের সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে, তখন এনজিও কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে কিস্তি আদায়ে বাধ্য করছে দুঃসময় অতিক্রম করা মানুষগুলোকে। লকডাউন চলাকালিন ঋন আদায়ে বিধি নিষেধ থাকলেও তার তোয়াক্কা করছেনা এনজিওগুলো।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu