শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম

দিঘলিয়ায় ব্যবসায়ী ইয়াছিন হত্যা মামলা গ্রহনে থানা পুলিশের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন !

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই, ২০২১
  • ৮০৪ জন সংবাদটি পড়েছেন
 দিঘলিয়া প্রতিনিধিঃ খুলনা জেলার দিঘলিয়া উপজেলার চন্দনীমহল গ্রামে ব্যবসায়ী যুবককে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলা গ্রহনে থানা পুলিশের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এনে নিহত ইয়াছিনের মা ও মামলার বাদী হাফিজা বেগম খুলনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

২৮ জুলাই সকালে খুলনা প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে মামলার বাদী অভিযোগ করেছেন  গত ২৭ জুলাই ৩১  জনের নাম উল্লেখ করে একটি এজাহার দায়ের করেন। মামলা শেষে বাড়ি ফেরার পথে পুলিশ তার কাছ থেকে সাদা কাগজে সাক্ষর করিয়ে রাখে। পরবর্তীতে বাড়িতে ফিরে জানতে পারেন ১৫ জন কে আসামী করে মামলা হয়েছে এবং যাদের সাক্ষি করা হয় তাদের নাম ও বদলে দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন থানা পুলিশের এত বড় প্রতারণা দেখে আমি শংকিত হয়েছি, এখন মনে হচ্ছে আমি সন্তান হত্যার বিচার পাবো বলে মনে হয় না। আমি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশ প্রধানের নিকট সন্তান হত্যার সুবিচার দাবি করছি।

অপরদিকে পুলিশ দাবি করেছে ইয়াছিন শেখ হত্যাকান্ডের মূল রহস্য উদঘাটন করতে পেরেছে। নিহত ইয়াসিন শেখ এর আপন মামা শাহজাহান গাজীর ওপর পুর্বের হামলার প্রতিশোধ নিতেই খুন করা হয় দিঘলিয়ার ব্যবসায়ী ইয়াসিন শেখ কে। হত্যাকান্ডে নিজের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে ২৮ জুলাই বিকালে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে এ মামলার আসামী সানি (১৯)। সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মনিরুজ্জামানের আদালতে সে এই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করে। গ্রেফতারকৃত সানি (১৯) গাজী পাড়ার বাবুল খাঁ এর ছেলে।

দিঘলিয়া থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রিপন কুমার সরকার বলেন ,গত মঙ্গলবার সানিকে দিঘলিয়া থেকে গ্রেফতার করা হয়। এরপরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে নিজের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে। আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিতে চাইলে তাকে আদালতে উপস্থিত করা হয়। সানি হত্যাকান্ডের ব্যাপারে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। তদন্তের স্বার্থে সব এই মুহূর্তে প্রকাশ করা যাবে না। তবে হত্যাকান্ডে জড়িত অনেকের ব্যাপারে তথ্য দিয়েছে সানি। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। এই হত্যা মামলার তদন্তের দায়িত্বে রয়েছেন এস আই সঞ্জীব সাহা।

মামলার বাদী হাফিজা বেগম এর অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে  ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রিপন কুমার সরকার বলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ‘ ক ‘ সার্কেল রাজু আহমেদ এর উপস্থিতিতে স্বচ্ছতার সাথে মামলা গ্রহন করা হয়েছে এবং দ্রুততম সময়ে একজন আসামী সানী (১৯) কে আটক করি। মামলার বাদী অন্য কারোর প্ররোচনায় মনগড়া কথা বলছেন। এই মামলায় বাকি আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য ইয়াসিনের মামার সাথে কিছুদিন পূর্বে খুনীদের বিরোধ হয়। আর এ বিরোধের জেরে খুন হয় ইয়াসিন। ২৫ জুলাই ইশার নামাজের পর দুর্বৃত্তরা ভিকটিমকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে ডেকে নিয়ে চন্দনীমহল গাজী পাড়া এলাকায় কুপিয়ে মুমূর্ষ আবস্থায় ফেলে যায়। পরে রাত ১০ টার দিকে নিহতের স্বজনরা খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে সেখানকার চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঐদিন রাতেই পুলিশ সানিকে আটক করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu