মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:১২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
পাইকগাছায় বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে ৯টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন এক রাতের বৃষ্টিতে ফের ডুবলো সাতক্ষীরা কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক যুবকের মৃত্যু পলাশবাড়ীর কিশোরগাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রিন্টুসহ ৬ জুয়াড়ী  আটক সাদুল্লাপুরে জুয়া খেলার টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা আজ সাতক্ষীরার তালা উপজেলার ১১ইউপিতে নির্বাচন,ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র৩২টি আজ নোয়াখালীর ১৩ ইউনিয়নে নির্বাচন, প্রচারণায় মুখর ছিল চরাঞ্চলের জনপদ সাতক্ষীরায় এসিড সারভাইবারদের বাড়িতে হামলা  মারধর ভাংচুরের বিচার দাবিতে মানববন্ধন কলারোয়ায় নির্বাচন উপলক্ষে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক ব্রিফিং সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগরের জনজীবন ভেলাই ভাসছে !

হেফাজতের আমীর বাবুনগরী চলে গেলেন নাফেরার দেশে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২১
  • ৬০ জন সংবাদটি পড়েছেন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বাংলাদেশে নানা সময়ে আলোচিত হেফাজতে ইসলামের আমীর জুনায়েদ বাবুনগরী গুরুতর অসুস্থ হয়ে চট্টগ্রামের একটি হাসপাতালে মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাবুনগরীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। এরপর তাঁকে চট্টগ্রামের  সিএসসিআর হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর দুপুর ১২টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক বাবুনগরীকে মৃত ঘোষণা করেন।

জুনায়েদ বাবুনগরী স্ত্রী, পাঁচ মেয়ে, এক ছেলেসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

২০২০ সালে হেফাজত ইসলামের আমির হন জুনায়েদ বাবুনগরী। এর আগে তিনি এ সংগঠনের মহাসচিব পদে ছিলেন। এ ছাড়া তিনি চট্টগ্রামের মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষা পরিচালক ছিলেন।

হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব নুরুল ইসলাম জিহাদি তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে জানান, বুধবার সন্ধ্যা থেকেই জুনায়েদ বাবুনগরী অসুস্থ বোধ করছিলেন। এর আগেও তিনি বেশ কয়েকবার অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। হেফাজতে ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা আহমদ শফীর মৃত্যুর পর তিনি সংগঠনটির শীর্ষ নেতৃত্বে আসেন ।

মি. শফী নেতৃত্বে থাকার সময় হেফাজতে ইসলাম ২০১৩ সালে ঢাকার শাপলা চত্বরে অবস্থান কর্মসূচী নিয়ে আলোচনায় আসে। তখন মি. বাবুনগরী সংগঠনটির মহাসচিব ছিলেন। সেসময় তিনি গ্রেপ্তার হয়েছিলেন।

এরপর এক পর্যায়ে সংগঠনটির শীর্ষ নেতৃত্বের সাথে সরকারের সখ্যতা গড়ে উঠেছিল এবং তা অনেক ক্ষেত্রেই দৃশ্যমানও হয়েছিল। বাংলাদেশের ইসলামপন্থী দলগুলোর ভাস্কর্য বিরোধী যে আন্দোলন ছিল, সেই আন্দোলনের নেতৃত্বে যারা ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম জুনায়েদ বাবুনগরী।

এই ভাস্কর্য বিরোধী আন্দোলনে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানেরও একটি ভাস্কর্য নির্মাণের বিরোধিতা করা হয়েছিল।

এবছরের মার্চ মাসের শেষের দিকে বাংলাদেশে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরের সময় হেফাজতে ইসলামের কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন যায়গায় ব্যাপক সহিংসতা হওয়ার পর সংগঠনটি সরকারের চাপের মুখে পড়ে।

নানা আলোচনা-বিতর্ক এবং সরকারের চাপের মুখে, হেফাজতের কমিটি একবার ভেঙে দিয়ে এডহক কমিটি করেছিলেন জুনায়েদ বাবুনগরী। এর মাস দুয়েক পর তিনি নিজে আমীর হয়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করেন।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu