মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৩৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
পাইকগাছায় বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে ৯টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন এক রাতের বৃষ্টিতে ফের ডুবলো সাতক্ষীরা কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক যুবকের মৃত্যু পলাশবাড়ীর কিশোরগাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রিন্টুসহ ৬ জুয়াড়ী  আটক সাদুল্লাপুরে জুয়া খেলার টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা আজ সাতক্ষীরার তালা উপজেলার ১১ইউপিতে নির্বাচন,ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র৩২টি আজ নোয়াখালীর ১৩ ইউনিয়নে নির্বাচন, প্রচারণায় মুখর ছিল চরাঞ্চলের জনপদ সাতক্ষীরায় এসিড সারভাইবারদের বাড়িতে হামলা  মারধর ভাংচুরের বিচার দাবিতে মানববন্ধন কলারোয়ায় নির্বাচন উপলক্ষে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক ব্রিফিং সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগরের জনজীবন ভেলাই ভাসছে !

সাতক্ষীরার পল্লীতে কিশোরীর আত্মহত্যা  নিয়ে রহস্যের জাল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম সোমবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৪২ জন সংবাদটি পড়েছেন
নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সাতক্ষীরার পল্লীতে আয়েশা খাতুন (১৩) নামের এক কিশোরীর আত্মহত্যা নিয়ে রহস্যের জাল বিস্তৃত হয়েছে।

রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) ভোরে সদর উপজেলার লাবসা ইউনিয়নের থানাঘাটা গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে ওই কিশোরীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে তার পরিবারের সদস্যরা। এর আগে রাত সাড়ে তিনটার দিকে সে ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে গলায় গামছা পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি তার পরিবারের সদস্যদের। তবে তার মৃত্যু নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে বিভিন্ন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

আত্মহননকারী ওই কিশোরী থানাঘাটা গ্রামের আবু জাফরের মেয়ে ও সাতক্ষীরা টাউন গার্লস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থী।

সকালে আয়েশার পরিবারের সদস্যরা দাবি করেন, তাদের মেয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। এনিয়ে তালতলা গ্রামের এক কবিরাজের কাছে তার চিকিৎসা চলছিলো। মূলত মানসিক ভারসাম্য ঠিক না থাকায় সে আত্মহত্যা করেছে।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধীক স্থানীয়রা জানান, থানাঘাটা গ্রামের জনৈক্য রাজমিস্ত্রি বাবলুর ছেলে মামুনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো কিশোরী আয়েশা খাতুনের। মামুন তাকে বিয়ে করার আশ্বাস দিলেও পরে বিয়ে করতে রাজি না হওয়ার জেরে এই আত্মহত্যার ঘটনা ঘটতে পারে।

আয়েশার বাবা আবু জাফরের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি প্রথমে মেয়ের প্রেমের বিষয়টি অস্বীকার করে জানান, তাদের মেয়ের কারও সাথে কোন প্রেমের সম্পর্ক ছিলোনা। সে মানসিকভাবে বিকারগ্রস্থ ছিল যে কারণে তাকে সাথে নিয়েই তারা এক বিছানায় ঘুমাতেন। রাতের কোন একসময় তারা ঘুমের মধ্যে থাকা অবস্থায় তাদের মেয়ে বিছানা থেকে উঠে অন্য ঘরে যেয়ে ফ্যানের সাথে গামছা বেঁধে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। একারণে তার কারও বিরুদ্ধে কোন অভিযোগও ছিলোনা এমনকি মেয়ের লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই দ্রুত দাফন করার জন্যও চেষ্টা করেন তারা।

এব্যাপারে কাটিয়া টাউন পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, সকালে মেয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে কারও বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই জানিয়ে ময়নাতদন্ত ছাড়াই দ্রুত মৃতদেহ দাফন করার চেষ্ট করা হয়েছিলো। তবে আমরা অধিকতর তদন্ত করে মেয়েটির একটি ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো বলে জানতে পেরেছি যেকারণে তার লাশ ময়না তদন্তের জন্য পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। আগামীকাল সকালে ময়নাতদন্ত শেষে বলা যাবে ঘটনা আসলে কি।

তিনি আরও জানান, সন্ধ্যায় আবু জাফর মেয়ের প্রেমের বিষয়টি মৌখিকভাবে স্বীকার করেছেন। এসব বিষয়ে জানার জন্য মামুনের বাবা বাবলুর কাছে একাধিকবার ফোন করা হলেও তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu