রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৫১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম

পাইকগাছায় আ’লীগের কমিটিতে মুল্যায়ন চান সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মিজান

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম বুধবার, ৬ অক্টোবর, ২০২১
  • ৬৯ জন সংবাদটি পড়েছেন
মোঃ আসাদুল ইসলাম, পাইকগাছাঃ  জি এম মিজানুর রহমান মিজান একজন সফল, ত্যাগী ও নির্যাতিত সাবেক ছাত্রলীগ নেতার নাম। যিনি আওয়ামীলীগের দুঃসময়ে ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দিতে যেয়ে তৎকালীন চার দলীয় সরকারের সময় বারবার হামলা, মামলা ও পুলিশি নির্যাতনের সহ্য করে আজো বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করে আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। দলীয় সকল কর্মসূচিতে সরব উপস্থিতি আজো দৃশ্যমান।
স্কুল জীবন থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হন মিজান। পরবর্তীতে সাংগঠনিক দক্ষতার কারনে ১৯৯৭ সালে পাইকগাছা কলেজে পড়াকালীন সময় কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ২০০০ সালে নবগঠিত পাইকগাছা পৌরসভা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পান। চার বছর পর ২০০৪ সালে বর্ণঢ্য সম্মেলনের মধ্যোদিয়ে পাইকগাছা পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন মিজানুর রহমান মিজান। পৌর ছাত্রলীগকে একটি সুসংগঠিত আদর্শ সংগঠনে রুপন্তিত করতে নিরালশ পরিশ্রম করতে যেয়ে বারবার তৎকালীন চার দলীল সরকারের সময় হামলা, মামলা ও পুলিশি নির্যাতনের শিকার হতে হয় তাকে।
২০০৪ সালের ২২ জানুয়ারী জননেত্রী শেখ হাসিনা হরতালের ডাকলে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতৃত্বে মিছিল ও পিকেটিং করলে সেদিন পুলিশের হামলা হয় এবং দ্রুত বিচার আইনে মিথ্যা রাজনৈতিক মামলা হয়। পুলিশের হাত থেকে রেহায় পেতে তিন মাস ফেরারী জীবনযাপন করতে হয় তাকে। সে সময় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরাসরি সহযোগীতায় হাইকোর্ট থেকে জামিন লাভ করেন। ২০০৪ সালে ২১ আগষ্ট জননেত্রীর উপর গ্রেনেট হামলা হলে পাইকগাছায় তাৎক্ষণিক ১১জন ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতা মিছিল করে। তারমধ্যে অন্যতম একজন ছিলেন এই মিজান। মিছিল করার কারণে পুলিশের ধাওয়া দিলে রাতের আধারে নদী সাঁতরে এলাকা ছেড়ে পালাতে হয়। ২০০৭ সালে যৌথ বাহিনীর হাতে জননেত্রী শেখ হাসিনা গ্রেফতার হলে তার মুক্তির দাবীতে রাজপথে মিছিল করে এবং পোষ্টারিং করার কারণে সেদিন রাতেই যৌথ বাহিনী বাড়িতে হামলা করে। এতোকিছুর পরেও ২০০৪ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত সভাপতি হিসেবে সফলভাবে নেতৃত্বে দিয়ে পৌরসভা ছাত্রলীগকে সুসংগঠিত ও আদর্শ সংগঠনে রুপন্তরিত করেন।
জিএম মিজানুর রহমান মিজান বলেন, ২০১০ সাল থেকে পাইকগাছা উপজেলা আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে থেকে কাজ করছি। দীর্ঘদিন দলের সম্মেলন না হওয়ায় দলে পদ-পদবী থেকে বঞ্চিত। তবে শুনছি অচিরেই পাইকগাছা উপজেলা আওয়ামীলীগের  পুর্নাঙ্গ কমিটি হবে। দলীয় সিনিয়র নেতৃবৃন্দ  পুর্নাঙ্গ কমিটতে আমার মত ত্যাগী, পরিশ্রমী, নির্যাতিত, সাবেক ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাদের মুল্যায়ন করবেন এবং সম্পাদক মন্ডলীতে স্থান দিবেন বলে আশা করছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu