বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:৪৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
ডুমুরিয়ায় ডিবি পুলিশের অভিযানে ২০ পিচ ইয়াবাসহ আটক-১ সুন্দরবন প্রেসক্লাবের সাথে বুড়িগোয়ালীনির নৌকার মাঝি ভবতোষ কুমারের সাথে মতবিনিময় সভা ভারতের নদীয়ায় মটর রেসিংয়ে খুলনার ছেলে সম্রাটের কৃতিত্ব ডুমুরিয়া সদরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু পাইকগাছায় বিরোধপূর্ণ লিজ ঘের আদালত কর্তৃক নিয়োগকৃত উকিল কমিশনের সরেজমিনে তদন্ত  ডুমুরিয়ায় জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় এক বৃদ্ধ আহত গোয়ালন্দে শ্বশুরবাড়িতে জামাইয়ের আত্মহত্যার অভিযোগ নববধূকে নিয়ে ফেরার পথে মাইক্রোবাস থেকে লাফ দিয়ে বরের আত্মহত্যা পীরগঞ্জে নির্বাচনি সহিংসতায় মৃত্যু- ৩ রূপসার ঘাটভোগ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন, স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজান চেয়ারম্যান নির্বাচিত

২৩ মাস বন্ধ ডাচ-বাংলা ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি,১৫ হাজার শিক্ষার্থী বিপাকে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম সোমবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২১
  • ৭৭৪ জন সংবাদটি পড়েছেন

সফিকুল ইসলাম রাজা, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ বিগত ২৩ মাস ধরে ডাচ বাংলা ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি বন্ধ থাকায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তের দরিদ্র, অসচ্ছল, মেধাবী শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

যেকোনো সমাজ বা জনগোষ্ঠিকে এগিয়ে নিতে হলে প্রয়োজন অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন। সমাজের সকল মানুষকে একটি প্রত্যাশিত ছন্দে এগিয়ে নিতে হলে সক্ষম ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানগুলোকে এগিয়ে আসতে হয়। সেই লক্ষ্যে প্রতি বছর দেশের বিভিন্ন প্রান্তের দরিদ্র, অসচ্ছল, মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে দেশের বেসরকারি ব্যাংকসহ নানান আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো।

সামাজিক দায়বদ্ধতামূলক (করপোরেট সোস্যাল রেসপনসিবিলিটি- সিএসআর) কার্যক্রমের অধীনে ব্যাংকগুলো বিভিন্ন পর্যায়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে। তাদের মধ্যে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বিবেচনায় অনন্য ডাচ বাংলা ব্যাংক ফাউন্ডেশন (ডিবিবিএফ)। অসচ্ছল-মেধাবী শিক্ষার্থীদের ‘স্বপ্ন পূরণের সেতুবন্ধন’ ডাচ-বাংলা ব্যাংক তার শিক্ষাবৃত্তি কর্মসূচির আওতায় দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উচ্চমাধ্যমিক, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান করে আসছিল। ধারাবাহিকভাবে স্বচ্ছতার সাথে এই কার্যক্রম পরিচালনা করায় ইতোমধ্যে সকল মহলের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে সিএসআরের অধীনের এই উপবৃত্তিটি।

করোনা প্রকোপ শুরুর পর থেকে বন্ধ রয়েছে তাদের এই কার্যক্রম। ফলে বিপাকে পড়েছেন বৃত্তির আওতায় থাকা অন্তত ১৫ হাজার শিক্ষার্থী। সেই সাথে নানা মাধ্যমে সমালোচিত হচ্ছে ব্যাংকটির শিক্ষাবান্ধব এই কার্যক্রম।

তথ্যমতে, এসএসসি পরীক্ষায় মেধার সাক্ষর রাখা শিক্ষার্থীদের মাসিক ভিত্তিতে দুই হাজার টাকা করে ২৪ মাস বৃত্তি দিয়ে থাকে ডাচ বাংলা ব্যাংক। এছাড়া শিক্ষা উপকরণ কেনার জন্য আড়াই হাজার টাকা এবং ড্রেসের জন্য দেয় এক হাজার টাকা। আর অনার্স পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বছরে এককালীন দেয়া হয় ছয় হাজার টাকা। এছাড়া প্রতিমাসে দেয়া হয় তিন হাজার টাকা। যা দিয়ে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীরা তাদের পরবর্তী পড়ালেখা চালিয়ে যেতে পারেন। দীর্ঘ সময় ধরে বৃত্তির এই অর্থ না পাওয়ায় আর্থিক সংকটে ভুগছেন তারা।

শিক্ষার্থীদের তথ্যমতে, ২০২০ সালের জানুয়ারি মাস থেকেই বৃত্তির টাকা পাচ্ছেন না শিক্ষার্থীরা। সে হিসেবে প্রায় ২৩ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে তাদের শিক্ষাবৃত্তি। তবে প্রতিষ্ঠানের দাবি করোনাকালীন লকডাউনের সময় থেকেই বৃত্তি প্রদান বন্ধ রেখেছেন তারা।

চলতি বছরের ২৭ অক্টোবর তারা সিএসআর ( শিক্ষা খাতে অবদান রাখায়)এর প্রথম পুরস্কার পেয়েছেন। জানা গেছে, অন্যান্য বেসরকারি ব্যাংকের বৃত্তি কার্যক্রম অব্যাহত থাকলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কারণে শিক্ষার্থীদের বৃত্তির টাকা দেয়া বন্ধ রেখেছে ডাচ-বাংলা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

হেল্পলাইন থেকে জানানো হয়েছিলো, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ১৫ দিনের মধ্যেই শিক্ষার্থীদের স্বস্ব একাউন্টে শিক্ষা বৃত্তির টাকা প্রদান করা হবে। কিন্তু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পরেও এখন পর্যন্ত কোনো টাকা বা নোটিশ প্রদান করা হয়নি। এদিকে ক্যাম্পাস খোলায় শিক্ষার্থীরা তাদের লেখাপড়ার খরচ চালাতে হিমশিম খাচ্ছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা বলছেন, করোনার সময় যেখানে অন্যান্য ব্যাংক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলো সেখানে ডাচ-বাংলা ব্যাংক তাদের শিক্ষাবৃত্তি বন্ধ রেখেছে। বর্তমানে তাদের লেখাপড়ার খরচ বাসা থেকে নিতে হচ্ছে। এতে তাদের পরিবারের উপর বাড়তি চাপ সৃষ্টি হচ্ছে। এ অবস্থায় দ্রুত বৃত্তির অর্থ পুনরায় দেয়ার দাবি জানিয়েছেন বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu