বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৩২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
ডুমুরিয়ায় ডিবি পুলিশের অভিযানে ২০ পিচ ইয়াবাসহ আটক-১ সুন্দরবন প্রেসক্লাবের সাথে বুড়িগোয়ালীনির নৌকার মাঝি ভবতোষ কুমারের সাথে মতবিনিময় সভা ভারতের নদীয়ায় মটর রেসিংয়ে খুলনার ছেলে সম্রাটের কৃতিত্ব ডুমুরিয়া সদরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু পাইকগাছায় বিরোধপূর্ণ লিজ ঘের আদালত কর্তৃক নিয়োগকৃত উকিল কমিশনের সরেজমিনে তদন্ত  ডুমুরিয়ায় জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় এক বৃদ্ধ আহত গোয়ালন্দে শ্বশুরবাড়িতে জামাইয়ের আত্মহত্যার অভিযোগ নববধূকে নিয়ে ফেরার পথে মাইক্রোবাস থেকে লাফ দিয়ে বরের আত্মহত্যা পীরগঞ্জে নির্বাচনি সহিংসতায় মৃত্যু- ৩ রূপসার ঘাটভোগ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন, স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজান চেয়ারম্যান নির্বাচিত

সাতক্ষীরার শ‍্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নে ভুমিহীনদের ঘর আছে লোক নেই

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৩ জন সংবাদটি পড়েছেন

রাকিবুল হাসানঃ  শ্যামনগরে ভূমিহীনদের ঘর আছে কিন্তু ঘরে বসবাসের লোক নেই।  মুজিব শত বর্ষে ভূমিহীনদের প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার হিসেবে ঘরে বাস করতে পারছে না ভূমিহীনরা। শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নের পশ্চিম কৈখালীতে ২০২০ সালের শেষ দিকে ভূমিহীনদের জন্য নদীর চরে নির্মিত পাকাঘর বিতরণ করা হয়। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি জানান প্রতিটি ঘরের জন্য ১লাখ ৭১ হাজার টাকা করে বরাদ্ধ ছিল।

সর্বমোট ১২টা ঘরের জন্য ২০লাখ ৫২হাজার টাকা বরাদ্দের ১২টা ঘর নির্মাণের কাজ শুরু করে। কাজের শুরুতেই হয় অনিয়ম। দেওয়া হয় নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী। কিছু দিন যেতে না যেতেই বালু ঝরে পড়ে দেওয়াল থেকে। লোনা পানি দিয়ে কাজ করার কারণে ও নিম্নমানের সামগ্রী দেওয়ায় দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে না ঘরগুলি। আতঙ্কে থাকতে হয় নদী ভাঙন ও প্রাকৃতিক দুর্যোগের ভয়ে। এছাড়া খাওয়ার পানির সমস্যা গোসলের সমস্যা। নেই কোন বিদুৎতের ব্যবস্থা। বিভিন্ন সমস্যার কারণে বসবাসের অনুপযোগী হওয়ায় বসবাস করতে পারছেনা ঘর পাওয়া ভূমিহীনরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, ১২টা ঘরের মধ্যে ২টা পরিবার বাস করছে তাও কয়েক মাস। বাকি ১০টা ঘরে তালা লাগানো নাজুক অবস্থায় পড়ে আছে ঘর গুলো। কয়েকটা ঘরে এক থেকে দেড় মাস বসবাস করার পর ঘর ছেড়ে চলে গেছে অনেকে।

কথা হয় ঘর পাওয়া ভূমিহীন জায়াখালি গ্রামের শফিকুলের সাথে তিনি বলেন, আমরা ভূমিহীনরা মনে করে ছিলাম। সরকারি ঘর পেয়ে ভালো ভাবে দিন কাটাবো। কিন্তু নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে ঘর নির্মাণ করায় বালু ঝরে মেঝেতে পড়তেছে। মেঝেতে ফাটল দেখা দিয়েছে কিভাবে থাকব।

শফিকুলের স্ত্রী বলেন, বিদুৎতের কোন ব্যাবস্থা নেই,খাওয়ার পানির কোন ব্যাবস্থা নেই। গোসল কারার মত জায়গা না থাকায়। স্থানীয়েদের পুকুরে গোসল করতে গেলে তারা বের করে দেয়।

বর্তমান বসবাস কারি হাফিজুর রহমান বলেন, আমাদের থাকার কোন জায়গা নেই।যে কারণে আমরা সরকারি ঘরে এসে বসবাস করছি।কিন্তু এখানে থাকার মতো কোন ব্যাবস্থা নেই বিদুৎ নেই। পানি ভাল নেই তাছাড়া ঘর খুষে বালু পড়ে। যে কারণে থাকার খুব সমস্যা।

ভূমিহীন মনতেজের স্ত্রী বলেন, ওখানে কি করতে থাকবো যেভাবে ঘর গুলো বানিয়েছে। নদীর চরে প্রতিদিন লোনা পানি উঠে। খাওয়ার পানি নেই গোসলের ব্যাবস্থা নেই কারেন্ট নেই। ওর ছেয়ে যদি আমার যে খালের গড়ায় বাস করতেছি যদি এখানে দিত তাও থাকতে পারতান।

এ বিষয় কৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বলেন, ঘরের কাজের দায়িত্ব ছিল টহড় স্যার তিনি যেভাবে করেছে সেই ভাবে আছে। আমি শুধু জায়গাটা দেখিয়ে বালু ভরাট করে দিয়েছি। ঘরে মানুষ বসবাস করছে কিনা জানতে চাইলে বলেন কিছু মানুষ বাস করত। ভাটায় যাওয়ার সময় হয়েছে এজন্য তারা ঘরে তালা দিয়ে চলে গেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন : ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ

আমাদের রূপসী ইউটিউব চ্যানেল

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: রবিউল ইসলাম তোতা

প্রধান কার্য্যালয় : রামনগর পূর্ব রূপসা, রূপসা, খুলনা

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Hwowlljksf788wf-Iu